Home / তথ্য প্রযুক্তি / হোয়াটসঅ্যাপ প্রাইভেসি পলিসি অ্যাকসেপ্ট না করলে যে সমস্যা হতে পারে

হোয়াটসঅ্যাপ প্রাইভেসি পলিসি অ্যাকসেপ্ট না করলে যে সমস্যা হতে পারে

হোয়াটসঅ্যাপ প্রাইভেসি পলিসি ১৫ মে এর মধ্যে অ্যাকসেপ্ট না করে থাকলে ব্যবহারকারীরা কিছু অসুবিধার মুখে পড়তে পারেন বলে জানিয়ে কর্তৃপক্ষ। হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসি গ্রহণ করার ডেডলাইন ছিল ১৫ মে পর্যন্ত।ব্যবহারকারীদের নানা ধরনের ফিডব্যাকের কারণে বেশ কিছুদিন দেরি হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসির। ফেসবুকের মালিকানাধীন এই সংস্থা জানিয়েছে যে নতুন পলিসিতে বিশেষ কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। তবে খুব ছোট পরিবর্তন আনা হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপ প্রাইভেসি পলিসি অ্যাকসেপ্ট না করলে যে সমস্যা হতে পারে

যারা এটা অ্যাকসেপ্ট করবেন না তাদের অ্যাকাউন্ট এখনই বন্ধ করা হবে না, তবে ব্যবহারকারীকে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করার সময়ে কিছু অসুবিধার মুখে পড়তে হবে।

এসব সমস্যার মধ্যে রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট, নোটিফিকেশন ও হোয়াটসঅ্যাপ কলের ক্ষেত্রে কিছু সীমাবদ্ধতা। অর্থাৎ, অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভেট না হলেও, অনেক ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন না ব্যবহারকারীরা। এতে খারাপ ও ভালো দিক হলো কারো অ্যাকাউন্ট বন্ধ না হলেও তিনি ধীরে ধীরে বুঝতে পারবেন, যে তিনি হোয়াটসঅ্যাপের বহু ফিচার্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

আরো পড়ুনঃ জি-মেইল অ্যাপ যেসব পরিবর্তন নিয়ে আসছে

হোয়াটসঅ্যাপ সূত্রে জানা গিয়েছে, যে সব ব্যবহারকারীর এই হোয়াটসঅ্যাপের আপডেটেড প্রাইভেসি পলিসি স্বীকার করবেন না, তারা চ্যাট লিস্ট অ্যাকসেস করতে পারবেন না তারা। সেই সঙ্গেই আবার ভয়েস এবং ভিডিও কলও রিসিভ করতে পারবেন না। তবে, হোয়াটসঅ্যাপ পরে আবার তাদের ভয়েস কল বা ভিডিও কল ব্যাক করার অনুমতি দেবে।

এছাড়াও সেই সব ব্যবহারকারী হোয়াটঅ্যাপে নোটিফিকেশনও আসবে। তবে আপাতত সব ভয়েস এবং ভিডিও কলের জবাব দেয়া যাবে না। তবে এই সেবা কতদিন বন্ধ থাকবে বা পরে কী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে সেই নিয়ে এখনও কিছু জানানো হয়নি।