চুল লম্বা করার সহজ উপায় – চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায়

চুল লম্বা করার সহজ উপায় – চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায় – আধুনিক জীবন যাত্রায় চতুর্দিকে দুষন,মানসিক চাপ এবং পুষ্টির অভাবে মানুষ নানা সমস্যায় ভুগছে।এরমধ্যে একটি সমস্যা চুল ঝরে যাওয়া,লম্বা না হওয়া এবং টাক পড়ে যাওয়া।দুশ্চিন্তা মুক্ত জীবন যাপন,পুষ্টিকর খাবার পরিমাণ মত ঘুম ইত্যাদি যেমন আমাদের স্বাস্থের ক্ষতি করে ঠিক তেমনি চুলের ক্ষতিও করে।চুলের ক্ষতি থেকে বাঁচতে এবং দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করতে চুল লম্বা করার সহজ উপায় অনুসরণ করতে পারেন।

আমাদের অনুসন্ধানে আমরা খুঁজে বের করেছি সবার কিছু জাতীয় প্রশ্নঃ দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় ,চুল ঘন করার উপায়,৭ দিনে চুল লম্বা করার সহজ উপায়,অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায়,চুল লম্বা করার তেলের নাম কি,চুল সোজা করার উপায়,,চিকন চুল মোটা করার উপায়,চুল বড় করার দোয়া,চুল লম্বা হওয়ার দোয়া,ছেলেদের চুল সুন্দর করার উপায়।আমাদের জানতে হবে এর আজকের আয়োজনে আমরা জানবো চুল লম্বা করার সহজ উপায় – চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায়।

চুল লম্বা করার সহজ উপায় – চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায়

চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায়

প্রতিদিন মাথার ত্বক ম্যাসাজ করা

আমরা আমাদের মুরব্বিদের মুখে একটা কথা শুনতাম চুলে তেল লাগালে চুল লম্বা হয়।আসলে চুলে তেল লাগালে চুল লম্বা হয় না কিন্তু মাথায় তেল দেওয়ার সময় মাথার ত্বকে তেল ম্যাসাজের ফলে চুল লম্বা হয়।মাথার ত্বকে তেল মাস্যাজ করলে রক্ত সঞ্চালন বারে এবং চুল পড়া বন্ধ করে চুল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।প্রতিদিন এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন এবং শ্যাম্পুর মাধ্যমে চুল ধুয়ে ফেলুন।অনেকের তেল ব্যবহারে নানা রকমের সমস্যা হয়ে থাকে।যাদের তেলে সমস্যা রয়েছে তারা চাইলে আঙ্গুরের রস দিয়ে মাথার ত্বক ম্যাসাজ করতে পারেন।

ক্যাস্টর অয়েলের ব্যবহার

চুল লম্বা করা এবং ঘন করার সবচেয়ে কার্যকরী একটি উপাদান ক্যাস্টর অয়েল।ক্যাস্টর অয়েলে রয়েছে ভিটামিন এ এবং ফ্যাটি এসিড তাই এই তেলে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, বাদাম তেল সবগুলোকে এক সাথে মিশ্রিত করুন।এরপর মিশ্রণটি চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করে ৩০ মিনিটের মত অপেক্ষা করুন।৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু দিয়ে চুলে ভাল করে পরিষ্কার করে নিন।

চুল ঘন করার ঘরোয়া পদ্ধতি

অলিভ অয়েল ও ডিম

চুল ঘন করতে ডিম একটি কার্যকরি উপাদান।কারন ডিমে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন যা চুল পড়া বন্ধ করে চুল ঘন করতে সহয়তা করে।প্রোটিন ছাড়াও ডিমে রয়েছে ফসফরাস,আয়রন,জিংক,সালফার,সেলেনিয়াম এবং আয়োডিন যা চুলের ঘনত্ব বাড়ায় এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

অনেকেই হয়ত অলিভ অয়েল এই নামের সাথে পরিচিত না।মূলত জলপাইয়ের তেলকেই অলিভ অয়েল বলা হয়।আশা করি যারা অলিভ অয়েল চিনতেন না এখন থেকে চিনতে পারবেন।

কিভাবে ডিম ও অলিভ অয়েলের মাস্ক তৈরি করবেন

একটি পরিষ্কার বাঁটিতে এক চা চামচ জলপাইয়ের তেল,এক চা চামচ মধু এবং একটি ডিমের সাদা অংশ নিয়ে সব উপকরণ একসাথে মিশিয়ে নিন।মেশানোর পর্ব শেষ হলে মিশ্রণটিকে মাথার ত্বকে ভালভাবে ম্যাসাজ করে নিন।ম্যাসাজটি ২০-৩০ মিনিট রাখার পর শ্যাম্পু দ্বারা সম্পূর্ন মাথা ধুয়ে নিন।ডিম ও অলিভ অয়েলের এই মিশ্রণ সপ্তাহে ১ ব্যবহার করুন এর নিজেই এর রেজাল্ট দেখুন।

মেহেদী পাতা ও সরিষার তেল

নানা প্রকার তেলের ব্যবহারের ফলে কেউ সরিষার তেল চুলে ব্যবহার করে না বললেই চলে।কিন্তু সরিষার তেল চুলের গোড়া মজবুত করতে সাহায্য করে।মেহেদী হাত ও পা রাঙ্গিয়ে তুলতে ব্যবহার করে হলেও এই মেহেদী পাতা আপনার চুল ঘন করার মহৌষধ।এই দুটি উপাদান একসাথে মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করে চুলে ব্যবহার করলে চুল যেমনি লম্বা হবে ঠিক তেমনি ঘন হতে থাকবে।

কিভাবে সরিষার তেল ও মেহেদী পাতার মাস্ক তৈরি করবেন

একটি পরিষ্কার পাত্রে আপনার চুলের পরিমাণ কিংবা পরবর্তীতে ব্যবহার জন্য সংগ্রহে করতে চাইলে সে পরিমাণ সরিষার তেল চুলায় বসিয়ে দিন।তারপরে ১ কাপের মত তাজা মেহেদী পাতা সেই পাত্রে দিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন।যতক্ষন পর্যন্ত মেহেদী পাতা গুলো পুড়ে কালো হয়ে যাচ্ছে ততক্ষন পর্যন্ত জ্বাল দিতে থাকুন।মেহেদী পাতাগুলো পুড়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে ছেঁকে নিন।

তেলটি ঠাণ্ডা হয়ে গেলে চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করুন কিংবা পরবর্তীতে ব্যবহারের জন্য কোন পাত্রে সংগ্রহ করে রাখুন।রাতে ঘুমানোর পূর্বে এটি ম্যাসাজ করে ঘুমিয়ে পড়ুন সকালে ঘুম থেকে উঠে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।এভাবে সপ্তাহে ২-৩ দিন এই তেল চুলে লাগাতে পারেন।

আজকে এই পর্যন্ত আশা করছি চুল লম্বা করার সহজ উপায় – চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে এই লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে।যদি আপনার ভাল লেগে থাকে তাহলে লেখাটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন আমাদের ফেসবুক পেইজ জানতে হবে লাইক দিন।