গর্ভবতী মহিলাদের যত্ন – গর্ভবতী মহিলাদের সমস্ত প্রশ্নের উত্তর

গর্ভবতী মহিলাদের যত্ন – গর্ভাবস্থার সময় মহিলারা কী খাবেন এবং কী খাবেন না তা নিয়ে বেশ বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন।এই সময়ে মহিলাদের মেজাজও হঠাৎ বদলে যায় এবং সাথে তাদের খাওয়ার অভ্যাসও।

গর্ভবতী মহিলাদের কী খাওয়া উচিত এবং কী পরিমাণে খাওয়া উচিত তা জানা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আধুনিক সমাজের মেয়েরা বেশিরবাগ সময় পরিবার থেকে দূরে স্বামীদের সাথেই থাকে।এ কারণে গর্ভাবস্থাকালীন সময়ে তাদের সাথে পরিবারের কেউ থাকেনা তাই তারা কী খাবেন এবং কী খাবেন না সে বিষয়ে সঠিক তথ্য কেউ দিতে পারেনা।তবে আমরা এই জাতীয় মহিলাদের এই সমস্যাটির সমাধান করার চেষ্টা করেছি।

গর্ভবতী মহিলাদের যত্ন

গর্ভবতী মায়ের যত্ন

গর্ভাবস্থায় ওজন কত?

সমস্ত ডাক্তাররা বলেন যে গর্ভাবস্থায় মহিলাদের ওজন ১০-১৩ কেজি বৃদ্ধি করা উচিত।এতে কোনও ক্ষতি নেই।আপনার বাচ্চা এমন সময়ে আপনার সাথে রয়েছে যার জন্য বিশেষ ডায়েটের প্রয়োজন রয়েছে।

গর্ভাবস্থায় আমার কখন খাওয়া উচিত?

গর্ভবতী মহিলাদের অবশ্যই প্রতি ৪ ঘন্টা অন্তর স্বাস্থ্যকর কিছু খেতে হবে।এমনকি যদি আপনি ক্ষুধার্ত না হন।তবে আপনার শিশু অবশ্যই ৪ ঘন্টা পরে গর্ভে ক্ষুধার্ত বোধ করে।

গর্ভাবস্থায় কতটা পানি পান করা উচিত?

পানি শরীরের জন্য অত্যাবশ্যক এবং যখন কোনও মহিলা গর্ভবতী হয় তখন এর প্রয়োজনীয়তা আরও বেড়ে যায়।কারণ জল আপনার শরীরকেও বিশোধযুক্ত করে।প্রতিটি গর্ভবতী মহিলাকে দিনে কমপক্ষে ৩ লিটার জল পান করা উচিত।

গর্ভবতী মহিলাদের কত প্রোটিন গ্রহণ করা উচিত?

একজন গর্ভবতী মহিলাকে তার চেয়ে ১৫% বেশি প্রোটিন খাওয়া উচিত।গবেষণা অনুসারে, যদি কোনও মহিলার ওজন ৫০ কেজি হয় তবে তার উচিত দিনে ৫০ গ্রাম প্রোটিন খাওয়া।যদি তিনি গর্ভবতী হন তবে তার ৫০ এর পরিবর্তে ৬৫ গ্রাম প্রোটিন খেতে হবে।আপনার চিকিৎসককে আপনার কত প্রোটিন খাওয়া উচিত তা জিজ্ঞাসা করতে পারেন তবে আমরা যা বলেছি তা সাধারণ গর্ভাবস্থার উদাহরণ।

গর্ভবতী মহিলাদের দুগ্ধজাত খাবার কেন খাওয়া উচিত?

দুগ্ধজাত খাবার যেমন দুধ, দই, পনির এই সমস্ত গর্ভবতী মহিলাদের খাওয়া উচিত কারণ এইসব খেলে বাচ্চা ভালভাবে বেড়ে উঠে ও শিশুর হাড় এবং দাঁত শক্ত হয়।দুধজাত খাবারে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং ভিটামিন থাকে যা মা এবং শিশু উভয়ের জন্যই প্রয়োজনীয়।

গর্ভাবস্থায় কত ক্যালোরি প্রয়োজন?

সাধারণ মহিলাদের দিনে ২০০০ থেকে ২১০০ ক্যালোরি প্রয়োজন।তবে যদি কোনও মহিলা গর্ভবতী হন তবে তার ২০০ থেকে ৩০০ ক্যালোরি বেশি গ্রহণ করা উচিত।অর্থাৎ, সাধারণ গর্ভাবস্থায় মহিলাদের ২০০ থেকে ৩০০ ক্যালরি বেশি প্রয়োজন।

এ ছাড়া প্রত্যেক গর্ভবতী মহিলার ডাক্তারের পরামর্শে নির্ভুল পরিমাণে ফলিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম, আয়রন, জিঙ্ক, প্রোটিন, ফসফরাস, ভিটামিন ডি, ওমেগা ৩, ওমেগা ফ্যাটি অ্যাসিড গ্রহণ করা উচিত।এগুলি খেলে আপনার শিশু এবং আপনি উভয়ই সুস্থ থাকবেন।মহিলারা যদি গর্ভাবস্থায় ভাল খাবার গ্রহণ করেন তাহলে আপনার এবং আপনার গর্ভের শিশুর কোন স্বাস্থ্য ঝুঁকি নেই।তাই সকল মহিলার এই সময়ে তাদের খাবার এবং পানীয়ের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত।

The research grant comes as a new generation is exposed to various forms of tobacco other than cigarettes. generic cialis The device allows users to vape without getting caught, and its use by teens is rising, says USC researcher Jon-Patrick Allem.