Home / হেলথ টিপস / গর্ভবতীর যত্ন – শীতে গর্ভবতীর যে ভুলগুলি করা উচিত নয়

গর্ভবতীর যত্ন – শীতে গর্ভবতীর যে ভুলগুলি করা উচিত নয়

গর্ভবতীর যত্ন –  গর্ভবতী মহিলাদের শীতকালে নিজের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত, কারণ গর্ভাবস্থায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম হয় বলে অনেক রোগ আপনাকে ঘিরে থাকে।শীত আসার সাথে সাথে গর্ভবতী মায়েদের অনেক সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে।বিশেষত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম হয় এমন মহিলাদের কিছু সমস্যা দেখা দেয়। গর্ভবতী মহিলাদেরও এই সময়ে বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত কারণ গর্ভাবস্থায় তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে যায়।

গর্ভবতীর যত্ন – গর্ভবতী মায়ের খাদ্য তালিকা

শীতকালে গর্ভবতী মহিলাদের সর্দি, সংক্রমণ এবং শুষ্ক ত্বকের মতো সমস্যা হতে পারে।এ জাতীয় পরিস্থিতিতে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবন করা উচিত নয়।শীতে সামান্য অসাবধানতা মা ও শিশুর জন্য বিপজ্জনক হতে পারে।সুতরাং,গর্ভাবস্থাকালীন গর্ভবতী মহিলাদের অক্ষমতাকে শক্তিশালী করতে তাদের ডায়েটের আরও যত্ন নিতে হবে।

গর্ভাবস্থায় গর্ভবতী মহিলাদের তাদের স্বাস্থ্যের এবং ডায়েটের বিশেষ যত্ন নিতে হবে।আজ আমরা আপনাকে বলব গর্ভাবস্থায় আপনার কী যত্ন নেওয়া উচিত।শীতের এই হেলথ টিপস অনুসরণ করে আপনি অনেক সমস্যা এড়াতে পারেন।

নিজেকে ডেকে রাখুন

শীতে ঠাণ্ডা বাতাসের কারণে আপনি রোগের ঝুঁকিতে পড়তে পারেন।তাই বাইরে বেরোনোর ​​সময় নিজেকে পুরো ডেকে রাখুন।পায়ে মোজা এবং মাথায় স্কার্ফ পরতে ভুলবেন না।একটা কথা সব সময় মনে রাখবেন শীতের দিনে আপনার খুব গরম পোশাক পরিধান করা উচিত।

মৌসুমী ফল এবং শাকসবজি

গর্ভবতী অবস্থায় খাবার – শীতকালে ফ্লু ও সর্দি বেশি দেখা যায়।এমন পরিস্থিতিতে গর্ভবতীর উচিত তার ডায়েটের যত্ন নেওয়া।জাঙ্ক ফুডের পরিবর্তে আপনার ডায়েটে মৌসুমী ফল এবং শাকসবজি যুক্ত করুন।এটি শরীরকে হাইড্রেটেড রাখে এবং আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে।রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করার কারণে আমাদের দেহে যে কোনও রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি জোগায়।

ভিটামিন সি

গর্ভবতী মায়ের খাদ্য তালিকা – গর্ভাবস্থায় ভিটামিন সি প্রচুর পরিমাণে গ্রহণ করা উচিত।আপনি আপনার ডায়েটে কমলা এবং লেবু জাতীয় জিনিস যোগ করতে পারেন এর বাইরে ব্রকলিও খেতে পারেন।

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার

গর্ভবতী অবস্থায় খাবার – গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের বিকাশের জন্য প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার যেমন গম, ডিম, মুরগী, মাছ, দুধ এবং ডাল খেতে পারে।এইসব খাবার মায়ের পাশাপাশি শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করে।

ত্বকের সমস্যা এড়িয়ে চলুন

ত্বকের যত্ন –  গর্ভাবস্থায়,ত্বক পরিবর্তন হয় তবে শীতে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যায়।এ জাতীয় পরিস্থিতিতে খুব বেশি গরম জল ব্যবহার এড়িয়ে চলুন এবং আপনার ত্বককে নিখুঁত রাখতে ময়েশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করুন।

আরো পড়ুনঃ তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়

ডাক্তারের সাথে দেখা করুন

আপনি যদি গর্ভবতী হন এবং শীতের মৌসুমে আপনার যদি সর্দি, জ্বর বা কোনও ছোটখাটো অসুস্থতা থাকে এক্ষেত্রে অবিলম্বে একজন ডাক্তারের সাথে দেখা করুন।সময় মতো ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আপনি এবং আপনার শিশু সুস্থ থাকবে।

প্রচুর পরিমাণে জল পান

শীতের মৌসুমে তৃষ্ণা খুব কম মনে হয়।তারপরেও আপনার প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা উচিত।কারণ গর্ভাবস্থায় আপনার শরীরের আরও বেশি জল প্রয়োজন হয়।প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা মাথা ব্যথা এবং ত্বকের শুষ্কতার মতো অনেক ছোটখাটো সমস্যা রোধ করতে পারে।ঘুমের আগে আপনি জাফরান দুধও পান করতে পারেন যা আপনার জন্য খুব উপকারী।

বাসি খাবার এড়িয়ে চলুন

মহিলারা প্রায়শই শীতের সময় বাসি খাবার খান।কারন শীতের দিনে খাবার নষ্ট হয় না।আপনি যদি গর্ভবতী হন তবে এই সময়কালে আপনাকে বাসি খাবার খাওয়া এড়াতে হবে।বাসি খাবার আপনার শিশুর স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে।

গর্ভবতীর যত্ন টিপসের সাহায্যে গর্ভবতী মহিলারা শীতে খুব সহজেই নিজের যত্ন নিতে পারেন।আপনি যদি গর্ভবতী হন তবে অবশ্যই এই শীতে আপনার যত্নের জন্য এই টিপসগুলো ব্যবহার করে দেখুন।

About admin

জানতে হবে এর মাধ্যমে বিউটি টিপস,স্বাস্থ্য পরামর্শ,রান্নাবান্না,খেলাধুলা এবং জানা অজানা সকল বিষয় জানতে পারবেন।আমাদের ফেসবুক পেইজ লাইক দিন আর আমাদের সাথেই থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.