Home / চুলের যত্ন / অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায়

অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায়

অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় – প্রতিটি মেয়েই চায় তার চুলগুলি যেন সুস্থ, ঘন এবং কাঁধের নীচে দীর্ঘ হোক। কিন্তু পরিবেশের দূষণের কারণে চুলের ক্ষতি হওয়াতে চুল অস্বাস্থ্যকর হয়ে পড়তে শুরু করে। আর এরপর আপনার দীর্ঘ এবং ঘন চুল আপনি হারানো শুরু করেন। তবে চুল পড়ার সমস্যা এখন আর থাকবেনা। কারণ আজকে আমরা চুল বাড়ানোর উপায় সম্পর্কে আপনাকে সচেতন করছি।

আপনি চুলের বিকাশের জন্য কীভাবে ঘরে তেল তৈরি করতে পারবেন এবং অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় সম্পর্কে জানতে পারবে।চলুন জেনে নেওয়া যাক অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় সম্পর্কে।

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় সম্পর্কে অথবা চুল লম্বা করার তেলের নাম কি.? তাই আজকে আমরা আপনাকে পাঁচ ধরণের হেয়ার অয়েল তৈরি করা শিখাবো যা কেবল চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায় নয় আপনার চুলকে সুস্থ ও স্বাস্থ্যকর রাখার জন্যও কাজ করে।

প্রতিদিন নিত্য নতুন বিউটি টিপস পেতে ভিজিট করুনঃ রূপচর্চা বিষয়ক টিপস

অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায়

১- তেজ পাতা এবং নারকেল তেল
২- নাইজেলা এবং জলপাই অথবা নারকেল তেল
৩- কর্পূর এবং ক্যাস্টর অয়েল অথবা জলপাই তেল
৪- নিম এবং বাদাম তেল
৫- আমলা এবং জলপাই তেল
৬- ডিম
৭- সবুজ শাকসবজি

চুল লম্বা করার তেলের নাম কি.?

তেজ পাতা এবং নারকেল তেল

তেজপাতা যা কমবেশি সবার রান্নাঘরে সর্বদা উপস্থিত থাকে। চুলের স্বাস্থ্যের জন্য তেজপাতা একটি দুর্দান্ত উপাদান। তেজপাতায় চুল পুষ্টিযুক্ত করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত পুষ্টি উপাদান রয়েছে। অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট এবং অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে যা চুলের ফলিকেলগুলিকে শক্তিশালী করে এবং চুল পাতলা এবং চুল পড়ার প্রাকৃতিক উপায় হিসেবে কাজ করে। তেজপাতায় প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন এবং প্রোটিন থাকে যা চুল লম্বা করার সহজ উপায় হিসেবে কাজ করে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

কিছু তেজপাতা নিন এবং দুইদিন রোদে শুকাতে দিন। শুকানো শেষে ১০০ মিলি নারকেল তেল এরসাথে শুকনো তেজপাতা রেখে তেল সিদ্ধ করুন। সিদ্ধ করা শেষ হলে ১০ থেকে ১৫ মিনিট ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হয়ে যাওয়ার পরে তেল ছেঁকে নিন এবং তেলের এই মিশ্রণটি আপনার মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করুন।

কালোজিরা এবং জলপাই তেল অথবা নারকেল তেল

কালোজিরাতে ভিটামিন এ, বি এবং সি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। শুধু এটিই নয় ম্যাগনেসিয়াম, দস্তা, আয়রন, পটাশিয়াম এবং প্রয়োজনীয় ফ্যাটি অ্যাসিডের মতো পুষ্টিও রয়েছে। কালোজিরাতে সব রোগের ঔষধ বলা হয়ে থাকে সুতরাং স্বাস্থ্যকর চুল পেতে কালোজিরা ব্যবহার খুবি গুরুত্বপূর্ন। চুলের তেলের সাথে কালোজিরা মিশ্রিত করলে চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন হয়।দীর্ঘ সময় ধরে চুল লম্বা করার ঘরোয়া উপায় হিসেবে এটি ব্যবহার হয়ে আসছে। আপনি আরও জেনে খুশি হবেন যে এই মিশ্রণটি চুলের নানা রকম সমস্যা দূর করে এবং চুলকে কন্ডিশন করে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

ব্লেন্ডারে এক চা চামচ কালোজিরা দিয়ে সেটিকে গুঁড়ো করে নিন। কালোজিরা গুঁড়ো করা শেষে একটি পরিষ্কার বোতলে জলপাই তেল (Olive Oil) বা নারকেল তেল নিয়ে সেটিতে কালোজিরা গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। মিশানো শেষে দুই থেকে তিন দিন রেখে দিন দুই থেকে তিন দিন পর তেলটি ব্যবহারের উপযোগী হবে। যখনই আপনি এই তেল ব্যবহার করতে চান তখন অল্প পরিমাণে গরম করুন এবং চুল এবং মাথার ত্বকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন।

কর্পূর এবং ক্যাস্টর অয়েল অথবা জলপাই তেল

কর্পূর চুল এবং ত্বক যাবতীয় সমস্যা দূর করতে খুবি উপকারী। কর্পূর এর এমন ব্যবহারের কথা শুনে আশ্চর্য হওয়ার কিছুই নেই কারন এটি আয়ুর্বেদে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে রেখেছে। অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যে পূর্ণ কর্পূর চুলের কোষকে শক্তিশালী করে এবং শুকনো চুলের পুষ্টি জোগায়। কর্পূর চুলকে ঘন করে তোলে এবং খুশকি ও চুল পড়া রোধেও কর্পূর খুবি কার্যকর।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

সমপরিমাণ কর্পূর তেল এবং ক্যাস্টর অয়েল ভালোভাবে মিশিয়ে একটি পরিষ্কার বোতলে ভরে নিন। আপনি যখন এই মিশ্রিত তেল ব্যবহার করতে চান তখন তেলটিকে হালকাভাবে গরম করুন এবং এটি দিয়ে আপনার চুলের গোঁড়া,মাথার ত্বক এবং চুল ম্যাসেজ করুন।

নিম পাতা এবং বাদাম তেল

চুলের সর্বাধিক সাধারণ সমস্যা হ’ল খুশকি। নিমে পাতার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং ফ্যাটি অ্যাসিড, পাশাপাশি অ্যান্টি-ফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি। নিম পাতার থেরাপিউটিক বৈশিষ্ট্যগুলি আপনার চুলকে স্বাস্থ্যকর এবং খুশকি মুক্ত করে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

অল্প পরিমান নিম পাতা দুইদিন রোদে শুকিয়ে নিন। এবার এই শুকনো নিম পাতা পাতা ১০০ মিলি বাদাম তেল (Almond Oil) এর মধ্যে দিয়ে সিদ্ধ করে নিন।নিমে পাতাগুলি এক সপ্তাহের জন্য তেলে ডুবিয়ে রাখুন। কয়েক দিনের মধ্যে এই তেলটি সবুজ হয়ে যাবে, যার অর্থ নিমের নির্যাসগুলি তেলে ভালভাবে মিশে যাবে।সবুজ হয়ে যাওয়ার পর ছেঁকে পাতাগুলো ফেলে দিন এবং তেলটি প্রতিদিন একই নিয়মে মাথার ত্বকে ও চুলে ম্যাসাজ করুন।

আমলা এবং জলপাই তেল

চুলের পুষ্টির জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় উপাদান হ’ল আমলা। আপনি বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে আমলা ব্যবহারের কথা হয়ত দেখেছেন।আর এই আমলাতে রয়েছে ভিটামিন সি যা আপনার চুল কালো এবং চকচকে করার বিষয়টি নিশ্চিত করে।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

জলপাইয়ের তেলের সাথে কয়েক টুকরো শুকনো আমলা কুঁচি মিশিয়ে এই মিশ্রণটি সিদ্ধ করুন।সিদ্ধ শেষে মিশ্রণটি একটি পরিষ্কার পাত্রে এক সপ্তাহ জন্য রেখে দিন। এক সপ্তাহ পর থেকে এটি আপনার চুলে ব্যবহার করুন। আপনি যদি প্রাকৃতিক উপায়ে চুল লম্বা করার উপায় পেতে চান তাহলে এই তেলটি সপ্তাহে দু’বার চুলে লাগান।

আমাদের খাদ্যও আমাদের চুলের স্বাস্থ্যের সাথে সরাসরি সম্পর্কিত যার অর্থ সঠিক খাবার আপনার চুলকে সুস্থ রাখবে। আপনি যদি ৭ দিনে চুল লম্বা করার উপায় খুঁজছেন তবে এই খাবারগুলিকে আপনার খাবারের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করুন এবং ফলাফলগুলি নিজেই দেখুন।

ডিম

আপনি যদি ভাল সুস্থ থাকতে চান ভিটামিন যুক্ত ও পুষ্টিকর খাবার অবশ্যই খেতে হবে।আর স্বাস্থ্যে পাশাপাশি আপনার চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখনে ভিটামিন ও প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়াও খুব জরুরী। আর প্রোটিন এবং বায়োটিনের মতো দুটি প্রয়োজনীয় পুষ্টি সমৃদ্ধ একটি হলো ডিম। ডিম আপনার চুল বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

সবুজ শাকসবজি

সবুজ শাক-সবজিতে ভিটামিন এ এবং সি থাকে যা চুলের লম্বা করতে খুবি উপকারী। পালং শাকে আয়রন ও ভিটামিন সি রয়েছে যা চুলের ফলিকগুলি স্বাস্থ্যকর করে তোলে। যদি আপনার শরীরে আয়রনের ঘাটতি থাকে তবে চুলে অক্সিজেন এবং পুষ্টির সংক্রমণ প্রভাবিত হয় যা চুলকে দুর্বল করে তোলে।সুতরাং নিজের শরীরের যত্ন নেওয়ার পাশাপাশি চুলের যত্ন নেওয়া জরুরী।

আমরা আশা করি যে অল্প সময়ে দ্রুত চুল লম্বা করার উপায় সম্পর্কে এখন আপনি এত বেশি তথ্য পেয়েছেন যে আপনি এখনই সবসময় আপনার চুলকে স্বাস্থ্যকর শক্তিশালী এবং চকচকে রাখতে পারেন।

About admin

জানতে হবে এর মাধ্যমে বিউটি টিপস,স্বাস্থ্য পরামর্শ,রান্নাবান্না,খেলাধুলা এবং জানা অজানা সকল বিষয় জানতে পারবেন।আমাদের ফেসবুক পেইজ লাইক দিন আর আমাদের সাথেই থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.