Home / খাদ্য ও পুষ্টি / আনারসের উপকারিতা – আনারসের কানায় কানায় ভর্তি গুণাগুণ

আনারসের উপকারিতা – আনারসের কানায় কানায় ভর্তি গুণাগুণ

আনারসের উপকারিতা: আনারস শুধু খেতেই ভালো নয়‚ এই ফলে লুকিয়ে আছে প্রচুর হেল্থ বেনিফিটস। আসুন দেখে নিন সেগুলো কী কী।

১) আর্থ্রারাইটিসের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে : শরীরের বিভিন্ন জয়েন্টে যেমন হাঁটু‚ কনুই‚ আঙুলের মত জায়গায় ব্যথা কমাতে সাহায্য করে‚ বিশেষত তা যদি আর্থ্রাইটিসের ব্যথা হয়। আনারসে উপস্থিত এনজাইম Bromelain এই ধরণের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

২) শরীরের সহ্য ক্ষমতা বাড়ে : আনারসে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি পাওয়া যায় যা ইমিউনিটিকে আরো ক্ষমতাশালী করে। এছাড়াও শরীরের Free Radical কমাতেও সাহায্য করে।

৩) শরীরের Tissue and Cellular Health-এর খেয়াল রাখে : আগেই বলেছি এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে আর এই কারণে শরীরের কোলাজেন উৎপাদন বেড়ে যায়। এর ফলে tissue আর cell তো ঠিক থাকেই‚ একই সঙ্গে ত্বক‚ হাড়‚ বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গেরও খেয়াল রাখে। এছাড়াও শরীরে যদি আঘাত লেগে কোনো ক্ষতের সৃষ্টি হয় তাও দ্রুত সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ রসুন খাওয়ার উপকারিতা – স্বাস্থ্য রক্ষায় নিয়মিত খান রসুন

৪) ক্যান্সার রোধ করে : আনারসে ভিটামিন সি আর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকার কারণে ক্যান্সার রোধ করতেও সাহায্য করে। এছাড়াও আনারসে উপস্থিত ভিটামিন A‚ বেটা ক্যারোটিন‚ম্যাগনেসিয়ামও গুরুত্বপূর্ণ ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধ করার জন্য।

৫) হজম ক্ষমতার উন্নতি করে : অন্য যে কোনো ফলের মতই আনারসেও প্রচুর ফাইবার থকে। কিন্তু আনরসের একটা বিশেষত্ব আছে এতে soluble এবং insoluble দুই রকমেরই ফাইবার পাওয়া যায়। তাই আনারস খেলে আপনার হজম শক্তি বাড়বে‚ ডায়েরিয়া ঠিক হবে এবং রক্তচাপ ঠিক থাকবে। এছাড়াও শরীরে কোলেস্ট্রোল কমাতেও সাহায্য করে আনারস। আর কোলেস্ট্রোল কন্ট্রোলে থাকলে হৃদযন্ত্র সংক্রান্ত রোগও দূরে থাকবে।

৬) সর্দি কাশি দ্রুত সারিয়ে তোলে : এতে উপস্থিত ভিটামিন সি আর bromelain দ্রুত সর্দি কাশি সারিয়ে তোলা ছাড়াও বুকে কফ জমতে দেয় না‚ এছাড়ও আমাদের শ্বাসনালী সাফ রাখে। আগে থেকে যদি বুকে কফ জমে থাকে তাও শরীর থেকে বের করে দিতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ কোনটি খাওয়া ভাল, ভাত না কি রুটি? ভাত ও রুটির পার্থক্য

৭) হাড় মজবুত করে : যদিও আনারসে খুব বেশি পরিমাণে ক্যালসিয়াম পাওয়া যায় না কিন্তু এতে উপস্থিত ম্যাঙ্গানিজ শরীরের হাড় শক্ত করে।

৮) ওরাল হেল্থ ঠিক রাখে : মুখের ক্যান্সার রোধ করা ছাড়াও আনারসে অ্যাস্ট্রিনজেন্ট প্রপার্টি আছে। মাড়ি আর দাঁত শক্ত করে। মুখের স্বাস্থ্য বজায় রাখা ছাড়াও এতে উপস্থিত অ্যাস্ট্রিনজেন্ট ত্বক টান টান করে এবং চুল পড়া কমায়।

৯) চোখের দৃষ্টি শক্তি বাড়ায় : নিয়মিত আনারস খেলে চোখের দৃষ্টিশক্তির উন্নতি হয়। এছাড়াও বয়স বাড়ার সঙ্গে যে সব চোখের সমস্যা দেখা দেয় তাও কম করতে সাহায্য করে। আর এর জন্য কার্যকরী আনারসে উপস্থিত বেটা ক্যারোটিন।

১০) ব্লাড প্রেশার ঠিক রাখে : শরীরে পটাসিয়াম কমে গেলে অনেক ধরণের অসুস্থতা হতে পারে। পটাসিয়ামের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হল রক্ত শিরার টেনশন আর স্ট্রেস কমানো। এছাড়াও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় রক্ত চলাচলেও সাহায্য করে পটাসিয়াম। আর ব্লাড ভেসেল রিল্যাক্স করলে আপনার রক্তচাপও ঠিক থাকবে এবং শরীর বিভিন্ন জায়গায় রক্ত চলাচল ঠিক থাকবে। ফলে রক্ত জমাট বাঁধার সম্ভাবনাও অনেক কমবে। হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের হওয়ার সম্ভাবনাও কমবে।

আরো পড়ুনঃ ডিম খাওয়ার উপকারিতা – রবি বা সোম প্রতিদিন একটি করে ডিম

১১) রক্ত চলাচল ঠিক করে : পটাসিয়াম ছাড়াও আনারসে কপার পাওয়া যায়। আর কাপার রেড ব্লাড সেল তৈরি করতে সাহায্য করে। যত বেশি রেড ব্লাড সেল বাড়বে শরীরে তত বেশি অক্সিজেনের চলাচলও বাড়বে। ফলে অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সঠিক ভাবে কাজ করবে। নিয়মিত আনারস খেলে ডিমনেশিয়া এবং অ্যালঝাইমার্স হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়।

Check Also

গ্রিন টি পানের উপকারিতা

জেনে নিন গ্রিন টি পানের উপকারিতা

গ্রিন টি পানের উপকারিতা: ওজন, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ বা ক্যান্সারের ঝুঁকি কমানো ছাড়াও রয়েছে নানান গুণ। …