Home / ইসলাম / শয়তান থেকে বাঁচার দোয়া ও ঘরকে শয়তান মুক্ত রাখতে করণীয়

শয়তান থেকে বাঁচার দোয়া ও ঘরকে শয়তান মুক্ত রাখতে করণীয়

শয়তান থেকে বাঁচার দোয়াঃ শয়তানের কাজ হলো পরিবারে, ঘরে অশান্তি সৃষ্টি করা। যে ঘরে সে প্রবেশ করে ঐ ঘরের পরিবেশকে বিনষ্ট করে দেয়, পরিবারের সদস্যদের মাঝে বিভক্তি সৃষ্টি করে। আর যদি ঘরওয়ালা আমলে দূর্বল হয় তাহলে শয়তান খুব জোরেশোরে তাকে কাবু করে। একসময় এই অশান্তিই ঘরে সর্বনাশা ডেকে আনে। আসুন জেনে নিই কীভাবে শয়তান আমাদের ঘরে অশান্তি সৃষ্টি করে এবং শয়তানের অনিষ্ট থেকে মুক্তি পেতে পারি।

এই শত্রু থেকে ঘরকে সংরক্ষণের কতিপয় আমল :

১. ঘরে প্রবেশ করার সময় নিম্মোক্ত দোয়া পাঠ করা : বিসমিল্লাহি ওলাজনা ওয়া বিসমিল্লাহি খারাজনা, ওয়া আলাল্লাহি রাব্বিনা তাওয়াক্কালনা। (আবুদাউদ)

২. ঘরে প্রবেশ করে সেখানে অবস্থানরত লোকদেরকে সালাম দেয়া। আল্লাহ বলেছেন, “তবে যখন তোমরা গৃহে প্রবেশ করবে তখন তোমরা তোমাদের স্বজনদের প্রতি সালাম করবে অভিবাদন স্বরূপ যা আল্লাহর নিকট হতে কল্যাণময় ও পবিত্র”। (সূরা নূর-৬১)

হাদীস শরীফে এসেছে, সালাম না দিয়ে ঘরে প্রবেশ করলে এবং পানাহারের সময় দোয়া পাঠ না করলে শয়তান সে ঘরে প্রবেশ করে।

প্রতিদন ইসলামিক সঠিক মাসালা মাসায়েল জানতে ক্লিক করুনঃ ইসলামী জীবন যাপন

নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ

“ তুমি যখন তোমার ঘরে প্রবেশ করবে তখন সালাম দিবে তা তোমার জন্য এবং তোমার পরিবারের জন্য বরকত হবে”। (তিরমিযী)

অন্য হাদীসে এসেছে, রাসূলুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ “যখন কোন ব্যক্তি তার ঘরে প্রবেশ করার সময় এবং খাবার খাওয়ার সময় দোয়া পাঠ করে তখন শয়তান বলেঃ আজ এখানে তোমাদের রাত্রিযাপন এবং নৈশ ভোজের কোন সুযোগ নেই”। (মুসলিম)

আরো পড়ুনঃ কথায় কথায় কসম করা মারাত্মক অপরাধ এবং তার শাস্তি!

৩. ঘরে সূরা বাকারা তেলওয়াত করা। রাসূলুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ “সবকিছুরই একটি চুড়া থাকে আর কোরআনের চুড়াহল সূরা বাকারা, শয়তান যখন সূরা বাকারার তেলওয়াত শুনে তখন সে ঐ ঘর থেকে বের হয়ে যায় যেখনে তা তেলওয়াত করা হয়”। (হাকেম)

৪.গান-বাজনা এবং গান-বাজনার সরন্জাম থেকে ঘরকে পরিচ্ছন্ন রাখা। কেননা আল্লাহর যিকির যেমন শয়তানকে দূরে রাখে তেমনিভাবে গান এবং বাদ্য যন্ত্রের আওয়াজ রহমতের ফেরেশতা গনকেও দূরে রাখে। আর ঘর থেকে যখন ফেরেশতাগণ বের হয়ে যায় তখন ওখনে শয়তান তার রাজত্ব কায়েম করে।

৫. ছবি এবং বিভিন্ন জীব জন্তুর মূর্তি থেকে ঘরকে পরিচ্ছন্ন রাখা। রাসূলুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ “যে ঘরে মূর্তি বা ছবি থাকে সেখানে ফেরেশতা প্রবেশ করে না”। (মুসলিম)

আরো পড়ুনঃ সন্তানের প্রতি মা বাবার কর্তব্য জেনে নিন ইসলাম কি বলে

৬. ঘরকে কুকুরমুক্ত রাখা। রাসূলুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ “ যে ঘরে ছবি এবং কুকুর থাকে সেঘরে ফেরেশ্তা প্রবেশ করে না”। (বোখারী)

Check Also

ইসলামে বিয়ের নিয়ম কানুন

ইসলামে বিয়ে করা কী ফরজ নাকি সুন্নত?

ইসলামে বিয়ের নিয়ম কানুনঃ ইসলামে বিয়ে করা কী ফরজ? ওয়াজিব? সুন্নত? নাকি নফল? যদি এ বিষয়ে …