Home / পুরুষের স্বাস্থ্য / পুরুষদের কয়েকটি স্বাস্থ্যগত ঝুকি

পুরুষদের কয়েকটি স্বাস্থ্যগত ঝুকি

সাধারণত পুরুষদের অনেক ধরণের রোগই হয়ে থাকে। তবে এর মধ্যে কিছু রোগ আছে, যা পুরুষ স্বাস্থ্যে মারাত্মক ভাবে আঘাত আনে। তবে যত বড় রোগই হোক না কেনো। এর সমাধান অবশ্যই রয়েছে। দীর্ঘ, সুস্থ জীবনের জন্য জানা কয়েকটি স্বাস্থ্য ঝুকি সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

হৃদরোগ

পুরুষদের প্রধান ঝুকি সম্পূর্ণ রোগ গুলোর মধ্যে একটি। যার কারনে প্রতি বছর বহু পুরুষ মারা যাছে। হৃদরোগ প্রতীকারের জন্য পুরুষদের সব সময় সচেষ্ট থাকতে হবে। নিম্নে কয়েকটি প্রতিকারকঃ

১. হৃদরোগের বিশেষ একটি কারণ ধূমপান। তাই প্রথমত ধূমপান পরিহার করতে হবে।
২. পুরুষদের খাদ্যের প্রতি বেশি অনীহা থাকে। তাই নিয়মিত সঠিক সময়ে খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। সব সময় পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।
৩. অনেক বেশি পরিমাণের পুরুষদের ডায়াবেটিস সমস্যা থেকে থাকে। তাই অবশ্যই তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।
৪. নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করতে হবে এবং আনন্দপূর্ণ কাজ করতে হবে।
৫. শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। প্রয়োজনে ব্যায়াম করতে হবে।

ক্যানসার

ক্যানসার পুরুষদের জীবন নাশের প্রধান রোগ গুলোর মধ্যে একটি। পুরুষের মধ্যে ক্যানসারের কারণে যাদের মৃত্যু হয়, শীর্ষে রয়েছে ফুসফুসের ক্যানসার। আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির অভিমত: এর কারণ হলো ধূমপান। এরপর রয়েছে প্রোস্টেট ক্যানসার ও কোলেস্টেরল ক্যানসার।
ক্যানসার প্রতিরোধ করতে হলে—

১.ফল ও শাকসবজিসমৃদ্ধ স্বাস্থ্যকর আহার করতে হবে।
২.স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখতে হবে।
৩.মদ্যপান বর্জন করতে হবে।
৪.ধূমপান করা যাবে না। তামাকপাতা, জর্দা, গুল চিবানো যাবে না।
৫.দৈনন্দিন জীবনে শরীরচর্চা থাকতেই হবে।
৬.পাশে কেউ ধূমপান করলে দূরে সরে যেতে হবে।
৭.কড়া রোদে বেশিক্ষণ থাকা ঠিক নয়। ছাতা ও এড়িয়ে যেতে হবে চর্বিবহুল খাবার।
৮.ক্যানসার জনক বস্তু অর্থাৎ কার্সিনোজেন যেমন, রেড়ন, এসবেসটস বিকিরণ ও বায়ুদূষণের মুখোমুখি যাতে না হতে হয়, সে রকম ব্যবস্থা করা।

কিডনির রোগ

ডায়াবেটিস বা উচ্চরক্তচাপের প্রথম জটিলতা হলো কিডনি বিকল হওয়া। ডায়াবেটিস বা উচ্চরক্তচাপ থাকলে চিকিৎসকের চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে হবে।

১.স্বাস্থ্যকর আহার
২.নুন কম খেতে হবে।
৩.ওজন বেশি থাকলে ওজন ঝরানো।
৪.প্রতিদিন ব্যায়াম
৫.ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওষুধ।

আত্মহত্যা

পুরুষের স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে বড় একটি হলো আত্মহত্যা। অনেক দেশে, সমাজে পুরুষের মধ্যে আত্মহত্যার কারণ হলো বিষণ্ন্নতা। মন বিষণ্ন মনে হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া ভালো। চিকিৎসা তো রয়েছেই। নিজের সর্বনাশ করা কেন? যতই প্রতিকূল অবস্থাই হোক, যত বিপদই হোক, একে অতিক্রম করাই তো মানুষের কাজ ।

Check Also

চোখের অ্যালার্জি প্রতিরোধ করুন

চোখের অ্যালার্জি প্রতিরোধ করার সহজ উপায়

চোখের অ্যালার্জি প্রতিরোধ করুনঃ আপনার চোখ দিয়ে কি প্রায়ই পানি পড়ে? চোখ কি লাল হয়ে …